অবৈধ ড্রেজার দিয়ে চলছে মাটি কাটার মহা উৎসব, দেখার যেন কেউ নাই

অবৈধ ড্রেজার দিয়ে চলছে মাটি কাটার মহা উৎসব, দেখার যেন কেউ নাই

0

স্টাফ: মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে অবৈধ  ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের মহোৎসব চলছে।  হুমকির মুখে ফসলি জমি দেখার কেউ নেই। উপজেলার প্রতিটি  ইউনিয়নে চলছে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন ও ড্রেজারের পাইপ রাস্তায় ফেলে যানচলাচল এবং মানুষের চলাচলের সৃষ্টি করছে প্রতিবন্ধকতা প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা।এর মাঝেই বালু বিক্রি করছে কিছু কুচক্রী মহল।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের ভাটিমভোগ দক্ষিণ পাড়া নাসির দেওয়ান অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে প্রশাসনের নাকের ডগায় অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে দীর্ঘদিন যাবত বিক্রি করে যাচ্ছে । এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট তহশিলদারদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বন্ধ করে দিয়ে আসছি। ঐ সব এলাকার কৃষকরা প্রশাসনের দ্রুত ব্যাবস্থা গ্রহণের দাবি করেন।

অপর দিকে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের রাস্তায় ড্রেজারের পাইপ ফেলে যানচলাচল ও মানুষের চলাচলে তৈরি হচ্ছে প্রতিবন্ধকতা প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা রয়েছে প্রানহানীর রয়েছে প্রাণহানির  শঙ্কা।

অবৈধ ড্রেজার দিয়ে মাটি বিক্রি কারী উপজেলার জৈনসার ইউনিয়ন ভাটিমভোগ দক্ষিণ পাড়া গ্রামের নাসিম দেওয়ান বলেন জানি এভাবে মাটিকাটা অবৈধ। তাহলে কাটেন কেন জিজ্ঞেস করলে তিনি উত্তেজিত হয়ে বলেন আপনার অনুমতি নিয়ে কাটতে হবে। যাকে বলার তাকে বলে কাটতেছি। আপনি পারলে কিছু করে দেখান।

নাসির দেওয়ানের বড় ভাই আজহার দেওয়ান বলেন ভুমি অফিস থেকে লোক আসছিলো ৩ হাজার টাকা দিয়ে বিদায় করে দিয়েছি।

জৈনসার ইউনিয়ন ভুমি কর্মকর্তা আসিসের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে অবৈধ ড্রেজারের মাটিকাটা বন্ধ করে দিয়ে আসছি টাকা নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান পিছনে কতো লোকে কতো কিছু বলে তাতে কি আসে যায়।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি জামান শাহিন হাওলাদার রতন জানান দীর্ঘদিন যাবত এই অবৈধ ড্রেজার দিয়ে এই বিলের জমির মাটি কেটে বিক্রি করে আসতে। মাঝে মাঝে ভুমি অফিসের লোক আসলে টাকা পেলে চলে যায়।

এবিষয়ে সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম জানান আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে লোক  দিয়েছি সঠিক তথ্য পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: