আরো একধাপ এগিয়ে গেলে পদ্মা সেতু, পূর্ণাঙ্গ রূপ পেল পুরো সড়কপথ

আরো একধাপ এগিয়ে গেলে পদ্মা সেতু, পূর্ণাঙ্গ রূপ পেল পুরো সড়কপথ

6
তুষার আহাম্মেদ- পদ্মা সেতুর শেষ স্ল্যাবটি বসানো হলো আজ সোমবার সকালে। এর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হলো সেতুর পুরো সড়কপথ। পদ্মা সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী দেয়ান আব্দুল কাদের বলেন, ‘সোমবার (২৩ আগস্ট) সকাল ১০টা ১২ মিনিটে পদ্মা সেতুতে সড়কপথের শেষ স্ল্যাবটি বসানো হয়েছে। এই ঐতিহাসিক মুহূর্তটি সবাই মিলে উদ্যাপন করা হয়েছে। আতশবাজীর মধ্য দিয়ে শেষ স্ল্যাবটি বসানো হয়েছে। এখন শুধু পিচঢালাইয়ের কাজ বাকি থাকল।’
তিনি বলেন, পদ্মা সেতুর মাঝখান দিয়ে গ্যাসলাইন বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। একইসাথে শেষ হতে চলছে রেললাইনের কাজও। আগামী বছরের জুনের আগেই সম্পূর্ণ কাজ শেষ করা হবে। এ জন্য এ প্রকল্পে কর্মরত সবাই একযোগে দিনরাত কাজ করে চলেছেন। ইতোমধ্যে পদ্মা সেতু প্রকল্প এলাকায় এসে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ঘোষণা দেন যে, ২০২২ সালের জুন মাসের যেকোনো দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সেতুর শুভ উদ্বোধন করবেন। সেই লক্ষ্যে সেতু প্রকল্পে কর্মরত দেশী-বিদেশী শ্রমিকরা কাজ করে চলছেন। এ পর্যন্ত মূল সেতুর কাজের ৯৪ দশমিক ৫০ শতাংশ শেষ হয়েছে।’
সেতুর মোট দুই হাজার ৯১৭টি রোডওয়ে স্ল্যাবের মধ্যে সর্বশেষটি সোমবার সকালে বসানো হয়। এর আগে চলতি বছরের ২০ জুন শেষ হয়েছিল দ্বিতল সেতুর রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ।
সেতু প্রকল্পের প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন, চলতি বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত সেতু প্রকল্পের সার্বিক কাজ এগিয়েছে ৮৭ দশমিক ২৫ শতাংশ। আর মূল সেতুর কাজের অগ্রগতি ৯৪ দশমিক ২৫ শতাংশ। অর্থাৎ মূল সেতুর কাজের আর বাকি মাত্র ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশ।
২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। এরপর একে একে ৪২টি পিলারে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের ৪১টি স্প্যান বসিয়ে ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু পুরোপুরি দৃশ্যমান হয়েছিলো ২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর। একইসাথে চলতে থাকে সড়কপথ ও রেলপথের স্ল্যাব বসানোসহ অন্যান্য কাজ। ২০২২ সালের জুন মাসের মধ্যেই এই সেতু যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়ার কথা রয়েছে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: