উন্নয়নের ছোঁয়া ৬নং আশ্রাব্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

4

সুমন খানঃ- প্রাথমিক শিক্ষা প্রসঙ্গ এলে তিন দশক আগের যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছবি ফুটে ওঠে, আজ তা অনেকখানি বদলে গেছে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগে।
তেমনি এক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কথা বলতে গেলে চলে আসে মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দী ইউনিয়নের ৬নং আশ্রাব্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কথা।
৬নং আশ্রাব্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোয়াজ্জেম হোসেন মাসুদ ২৫/০৩/২০২০ইং তারিখ হইতে অত্র বিদ্যালয়ে যোগদান করে এর পরথেকে বিদ্যালয়ের উন্নয়নের কাজ থেমে থাকেনি এখন তা চলমান।
এ উন্নয়ন আমরা খালি চোখেই দেখতে পারি। যেমন সুপরিসর বিদ্যালয় ভবন, সজ্জিত শ্রেণীকক্ষ, উচ্চশিক্ষিত ও প্রশিক্ষিত শিক্ষক, বিসিএস যোগ্যতাসম্পন্ন প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষা কর্মকর্তা, কার্যকর ব্যবস্থাপনা কমিটি। বছর বছর লক্ষাধিক টাকার আনুষঙ্গিক ব্যয় বরাদ্দ, শিক্ষকদের নিয়মিত সঞ্জীবনী প্রশিক্ষণ, আধুনিক প্রযুক্তি সুবিধাসহ পাঠদানের জন্য বিশেষায়িত শ্রেণীকক্ষ।
সব শিশুর জন্য উপবৃত্তি ও বিদ্যালয়ে মিড-ডে মিল প্রচলন, সহশিক্ষাক্রমিক কাজকে সমান গুরুত্বের সঙ্গে নেয়া, উদ্ভাবন উদ্যোগকে পৃষ্ঠপোষকতা দেয়া, শিশুর প্রারম্ভিক বিকাশের বিজ্ঞানসম্মত কারিকুলাম দ্বারা পরিচালিত প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণী, বিদ্যালয়কে আকর্ষণীয় করার আরো নানা উদ্যোগ তো আছেই। স¤প্রতি প্রাথমিক শিক্ষার কারিকুলাম পরিমার্জনের কাজও এগিয়ে চলেছে দ্রুত গতিতে। উন্নত জাতি গড়ার জন্য যে রকম বিশ্বমানের প্রাথমিক শিক্ষা প্রয়োজন, তা ৬নং আশ্রাব্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নিশ্চিত করতেই এত আয়োজন।
পরিবর্তিত এ প্রেক্ষাপটে সবার দৃষ্টি আকৃষ্ট হওয়া এখন সময়ের দাবি।
৬নং আশ্রাব্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
প্রতিষ্ঠাকাল ইতিহাস
প্রধান শিক্ষক মোয়াজ্জেম হোসেন মাসুদ, অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
পাশের হার বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
অর্জন ভবিষৎ পরিকল্পনা ফটোগ্যালারীযোগাযোগ
বিদ্যালয়টিতে একটি পাঠাগারের ব্যবস্থা রয়েছে। বিদ্যালয়ে একটি ল্যাপটপ ও মাল্টিমিডিয়া প্রোজেক্টর রয়েছে। এর সাহায্যে আধুনিক ও বিজ্ঞানসম্মত ভাবেশ্রেণিতে পাঠদান করা হয়।

Comments are closed.

%d bloggers like this: