গজারিয়া চরবাউশিয়ার বড়কান্দি গ্রামের কয়েকশকোটি টাকার সরকারি জমি বেদখল\ প্রশাসন নিরব

গজারিয়া চরবাউশিয়ার বড়কান্দি গ্রামের কয়েকশকোটি টাকার সরকারি জমি বেদখল\ প্রশাসন নিরব

5

মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন:চরবাউশিয়া মৌজা ২নং সিটের বড়কান্দি গ্রামের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে শুরু করে দক্ষিণ থেকে শুরু করে উত্তর দিকের সম্পূর্ণ সরকারি জায়গা দখল করে নিয়েছে। দখলের হিড়িক পড়ে গেছে অত্র এলাকায়। অত্র এলাকার ৪০টি পরিবার মিলে ৩০০ জনের বসবাস। এখানের ৩০০জন নারী, শিশু, বৃদ্ধা-বৃদ্ধ মিলে মানবেতর জীবন যাপন করছে। কারো আধাশতংশের মধ্যে ঘর উঠিয়ে ঠাসাঠাসি করে বসবাস করে আসছে। অত্র গ্রামের ২০০শ নারী-পুরুষ ও শিশু বিক্ষোভ মিছিল ও মানব বন্ধন করে এই ডোবা সরকারি ভাবে যেন দখল করতে না আসে। মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে সোমবার (১৪ জুন) সন্ধ্যা ৬টায়।

মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেন, মালেকা (৬৫) স্বামী দুদু মিয়া, ৫ ছেলে বাড়ী সাড়ে ৪শতাংশ। রনু বেগম (৬৫) পিতা রফিকুল ইসলাম ৩ ছেলে ২ মেয়ে। বাড়ী সাড়ে ৫শতাংশ। ইব্রাহীম (৪০) পিতা মৃত আরব আলী ২ভাই ২ বোন সাড়ে ৪শতাংশ। শিরিনা (৬০) স্বামী সিরাজ ৪শতক জায়গা রয়েছে তাদের। রোশনা খাতুন (৭৫) স্বামী নুরুল ইসলাম ৪ ছেলে ৪ শতক জায়গায় বসবাস। চেহারা খাতুন (৭০) স্বামী মৃত জজ মিয়া ৩ ছেলে ৩শতক জায়গায় বসবাস। খোরশেদো স্বামী মৃত হাফেজ ২ ছেলে ৩ মেয়ে সাড়ে ৩শতক জায়গায় তাদের বসবাস। মিনু বেগম (৪৫) স্বামী স্বপন মিয়া, বিল্লাল পিতা মৃত মালেক, রাফেজা (৭০) স্বামী মৃত মাহমুদ হোসেন, খায়রন নেছা (৭৬) স্বামী আ: মালেক প্রমুখ।

কয়েকশ কোটি টাকার সরকারি জায়গা উদ্ধার না করে ডোব ভরে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। বিষয়টি ডেবার সাথে যাদের বাড়ি এমন ৪০ পরিবার ৩০০ সদস্য নিয়ে জায়গার অভাবে মানবেতর জীবন যাপন করছে। মানব বন্ধনে উপস্থিত সকলে প্রশাসনের এমন উদ্যোগকে ন্যাাক্কার জনক বলে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন। সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে সরকারি সকল জায়গা উদ্ধার করার জন্যও তারা দাবী করেন বিক্ষোভ মিছিলে।

আব্দুর রব জানান, প্রশাসনের কাছে আমাদের বাড়ির সামনের এই ডোবা আমাদেরকে বরাদ্ধ দেওয়ার জন্য আবেদন করেছি। কিন্তু তারা এই আবেদনের কিছু না করে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর তৈরী করে কাদেরকে দখল করে দেওয়ার পায়তারা করছে সেটা প্রশাসনই বলতে পারবে। ভরাটকৃত সকল সরকারি জায়গা দখলমুক্ত করে উদ্ধার করে আসলে এই ডোবা ভরতে দেয়া হবে। অন্যথায় কোনমূল্যেই এই জায়গা ভরে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর উঠাতে দেয়া হবে না। যেখানে আমরা ৩০০ পরিবার জায়গার অভাবে বসবাস করতে পারছি না, সেখানে আমাদের বাড়ির সামনের ডোবা সরকার নিয়ে নিবে এটা হতে দেয়া যাবে না।

 

Comments are closed.

%d bloggers like this: