চাচা ও ফুফুর পুরো সম্পত্তি আত্মসাত ভাতিজির

চাচা ও ফুফুর পুরো সম্পত্তি আত্মসাত ভাতিজির

33

কাজী বিপ্লব হাসান : ভাতিজির বিরুদ্ধে পুরো সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগ এনেছে ছোট চাচা সেলিম সারওয়ার। ঘটনাটি ঘটেছে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার বালুর চর এলকার খাস মহল গ্রামে। সেলিম সারওয়ার জানান, তারা ০২ ভাই ০২ বোন। তাদের পিতা মরহুম দেলোওয়ার হোসেন ওরফে দৌলত হোসেন। তার পিতা মৃত্যুর সময় তাঁর যাবতীয় স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি যেমনঃ গ্রামের বাড়ীর জমি-জমা, ঢাকা কারওয়ান বাজারের সিটি কর্পোরেশন এর ২১ নং দোকানের মুল কাগজ পত্র এসব গ্রামের বাড়ীতে রক্ষিত ছিল। সেলিম সারওয়ার তখন প্রাবাসে ছিলেন। পিতার মৃত্যুর পর সেলিম সারওয়ার এর বড় ভাই মনির হোসেন এর কাছেই সমস্ত সম্পত্তির দলিল পত্র গচ্ছিত ছিল। কিন্তু কিছুদিন হলো সেলিম সারওয়ার এর বড় ভাই মনির হোসেন মারা গেছেন। তিনি মারা যাওয়ার পর তার বড় মেয়ে ঝুমা আক্তার দাদার স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পত্তির দলিল যা পিতার কাছে গচ্ছিত ছিল তা কৌশলে নিজের কাছে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে ছোট চাচা সেলিম সারওয়ার বলেন, ঝুমা তার দুই সৎ ভাই রাসেল ও বাবুর সহযোগিতায় সম্পূর্ণ সম্পত্তির দলিল পত্র এমনকি ঢাকার কারওয়ান বাজারে থাকা দোকানের দলিল পর্যন্ত তারা হস্তগত করে। তিনি আরো জানান, এ ব্যাপারে তিনি ঝুমার সঙ্গে কয়েকবার কথা বলেছেন, তার এবং তার দুই বোনের সম্পত্তি ফিরিয়ে দিতে, দলিল পত্র দেখাতে। কিন্তু এ ব্যাপারে কথা বললে ভাতিজী ঝুমা কৌশলে অন্য কথা বলে তালবাহানা করে ফোন কেটে দেয়।
গ্রামের লোকদের মারফত সেলিম সারওয়ার জানতে পারেন ঝুমা ও তার ভাইয়েরা সমস্ত সম্পত্তি তাকে ও দুই বোনকে না জানিয়ে অন্যের কাছে বিক্রির উদ্যোগ নিচ্ছেন। এতে তাদের বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে। এ জন্য তিনি ও তার দুই বোন চিন্তিত আছেন।
ঝুমা আক্তারের সঙ্গে কথা বললে তিনি দলিলের কথা অস্বিকার করে বলেন, দলিল পত্র তার কাছে বা আয়ত্ত্বে নেই। সেলিম সারওয়ার বলেন, আমার কাছে প্রমান আছে সব সম্পত্তির দলিল ঝুমার কাছে আছে। তিনি আরো বলেন, যারা নিজ চাচা ফুফুদের সম্পত্তি আত্মসাৎ করতে পারে তাদের সাথে কোন আপোষ নেই। এজন্য তিনি ভাতিজি ঝুমা বেগম, ভাইপো রাসেল ও বাবু গংদের বিরুদ্ধে সিরাজদিখান থানায় ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং একটি সাধারন ডায়েরী করেন। জিডি নংঃ ১৩৫৯।

Comments are closed.

%d bloggers like this: