টঙ্গীবাড়িতে ইজারা মূল্য না পাওয়ায় হাসাইলে গরুর হাট হয়নি

টঙ্গীবাড়িতে ইজারা মূল্য না পাওয়ায় হাসাইলে গরুর হাট হয়নি

2

তুষার আহাম্মেদ- মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে সর্ববৃহৎ পশু বেচা-কেনার অস্থায়ী হাঁট বসে উপজেলার বিভিন্ন স্থনে। কিন্তু চলতি বছরে হাসাইল ইউনিয়নে সরকারের দেয়া নির্ধারিত ইজারা মূল্য ও সিডিউল ক্রয় করে জমা না দেওয়ায় হাট হয়টি। স্থানীয়রা জানান- স্থানীয় নেতকর্মিদের সিন্ডিকেটে কম টাকায় হাট নেয়ার পায়তারায় এ বছর হাটটি হয়নি।
রবিবার সরজমিনে গিয়ে দেখাযায়, হাঁট বসানোর জন্য ইজারা সিডিউল ক্রেতারা হাসাইল-বানারী স্কুলের মাঠে বাঁশ দিয়ে খুটি বেধে ত্রিপল টাঙ্গিয়ে গরু রাখার জন্য প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছিল। কিন্তু সরকারের নির্ধারিত মূল্যে ইজারাদার না পাওয়ায় হাটটি করা সম্ভব হয়নি।
জানাগেছে- এ বছর হাসাইল গরুর হাটের কাক্ষিত মূল্য ছিলো ৪ লক্ষ ৪৫ হাজার ২শত টাকা। গত ১১ জুলাই প্রথমবার ডাকে দুটি সিডিউল বিক্রি হয়েছিল। সেখানে ১ম সিডিউলে ডাক ছিল ৩ লক্ষ টাকা, ২য় সিডিউল ডাক ছিল ১ লক্ষ টাকা। যার ফলে দরপত্র কমিটির সিদ্ধান্তে পুনরায় হাট ডাকের সিদ্ধান্ত হয়। সেখানে ২য় ডাকে কোন সিডিউল বিক্রি হয় নাই। ফলে দরপত্র কমিটির সিদ্ধান্তে ৩য় বার ডাকের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু সেখানে দুটি সিডিউল বিক্রি হলেও কেউ দাখিল করে নাই। ফলে উপজেলা প্রশাসন হাট দেয়ার জন্য কোন ইজারাদার পায় নাই।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা নাহিদা পারভীন জানান, আমরা নিয়মের বাইরে কোন কাজ করতে পারি না। উপজেলার ১১টি হাটের মধ্যে হাসাইলের হাঁটের জন্য তিনবার দরপত্র দিয়েও কাংখিত ইজারা মূল্য না পাওয়ায় ইজারা দেয়া সম্ভব হয়নি। বাকি ১০ টি হাট চলমান রয়েছে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: