ধর্ষণের শিকার বোনের সন্তান জন্ম : মারধরের শিকার হয়ে ভাইয়ের আত্মহত্যা

24

তুষার আহাম্মেদ: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আব্দুল্লাহপুরে ধর্ষণের স্বীকার কিশোরীর (১৩) ভাই মারধরের শিকার হয়ে আত্মহত্যা করেছেন। মঙ্গলবার ভোরে ঢাকার মিডফোর্ট হাসপাতালে চিকিসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

জানা গেছে, ধর্ষণের মূল অভিযুক্ত ব্যক্তির ছেলে ও মামাসহ স্বজনরা মারধর করেন ওই কিশোরীর ভাইকে। এই অপমানে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছেন ধর্ষণের শিকারে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে সন্তান জন্ম দেয়া কিশোরীর ভাই।

এ ঘটনাটি টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের পূর্ব পাইকপাড়া এলাকার। আত্মহত্যা করে ছেলের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন তার বাবা।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের স্বীকার অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর বাবা এ ঘটনায় টঙ্গীবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় মূল অভিযুক্ত গ্রেফতার হয়ে বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন। এই সূত্র ধরে তারা কিশোরীর ভাইকে মারধর করেন ধর্ষণে অভিযুক্ত পরিবারের সদস্যরা।

আত্মহত্যাকারীর বাবা বলেন, গত ২০ দিন আগে ধর্ষণের স্বীকার হয়ে আমার মেয়ে সন্তান প্রসব করে। এরপর গত শনিবার রাতে আমার ছেলেকে ধর্ষকের ছেলে সামির (১৮), আপন মামা বাচ্চু কোতয়াল (৫৫), হাসান (৫০) ও হাসানের স্ত্রী অজ্ঞাত (৩৫) ব্যাপক মারধর করে ও অপমান করেন। পরদিন রোববার আমার ছেলে অপমান সইতে না পেরে কীটনাশক পান করে। আমরা তাকে দ্রুত মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। পরে ঢাকা মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানেই মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে আমার ছেলে মারা যায়। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

এ বিষয়ে টঙ্গীবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন অর রশিদ জানান, ধর্ষণের বিষয়ে একটি মামলা আদালতে চলমান আছে। মূল অভিযুক্তকে পুলিশ গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে। কীটনাশক পানে মৃত্যুর ঘটনাটি পরিবার সূত্রে পুলিশ জানতে পেরেছে। এ ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে পুলিশ যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: