ন্সিগঞ্জে দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি হামলায় বাড়ি-ঘর, ব্যবসা ও ব্যাংকের এজেন্ট শাখা ভাঙচুর

ন্সিগঞ্জে দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি হামলায় বাড়ি-ঘর, ব্যবসা ও ব্যাংকের এজেন্ট শাখা ভাঙচুর

46
তুষার আহাম্মেদ- মুন্সিগঞ্জে ড্রেজারের মাটি ভরাটকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের হামলায় বাড়ীঘর, দোকানপাট সহ একটি বেসরকারি ব্যাংকের মূল ফটকে ভাংচুর করা হয়েছে।
শনিবার দিবাগত রাতে ও আজ রবিবার সকালে সদর উপজেলার আধারা ইউনিয়নের মিনাবাজার ও শিকদারকান্দি এলাকায় দুই দফায় এই হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
এতে ড্রেজারের ১৫ টি পাইব, কয়েকটি বসতঘর ও স্থানীয় বাজারের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সহ ইসলামি ব্যাংকের এজেন্ট শাখার জানালা সহ মূল ফটকে ভাংচুর করা হয়।
এ ঘটনার পর থেকে ওই এলাকাজুড়ে এখন থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হহয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।
স্থানীয়রা জানায়, এলকার বিবাধমান দুটি গ্রুপের মধ্যে বিরোধকে কেন্দ্র করে সৈয়দপুর গ্রামের ছাত্রলীগ নেতা আলমগীর ও বিএনপি নেতা  আর্নিস মৃধা,শফিকা খান,মহাসিন ভূইয়া, আবুল মৃধা,বাবুল মৃধা মীর হোসেন মৃধা ও দেলোয়ার মালত ও ফজল সৈয়ালের লোকজনের মধ্যে   দুই দফায়  হামলা ও সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এসময় প্রায় অর্ধশতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ সহ গুলি চালিয়ে গ্রামে আতঙ্ক ছড়িয়ে দেয় । পরে ভাংচুর চালানো হয় স্থানীয় বাজারের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ইসলামি ব্যাংকের এজেন্ট শাখার মূল ফটকে।
এসব ঘটনার এক পক্ষের দেলোয়ার মালত বলেন,সৈয়দপুর গ্রামের ছাত্রলীগ নেতা আলমগীর ও বিএনপি নেতা  আর্নিস মৃধা,শফিকা খান,মহাসিন ভূইয়া, আবুল মৃধা,বাবুল মৃধা মীর হোসেন মৃধাসহ একটি সংঘবদ্ধ চক্র এই হামলা চালায়। এসময় মুহুমুহু ককটেল বিস্ফোরণসহ গুলি চালিয়ে গ্রামে আতঙ্ক ছড়িয়ে দেয়। পরে ভাংচুর চালানো হয় ইসলামি ব্যাংকের  এজেন্ট শাখা,একটি বসতবাড়ী ও ১৫ টি ড্রেজারের পাইব।
তবে এসব অভিযোগ অস্বিকার  করে প্রতিপক্ষ আলমগীর ও আর্নিস মৃধা গংরা বলেন,এলাকায় আধিপত্ত বিস্তারের লক্ষে  দেলোয়ার মালত,সুমন মালত,সাদ্দাম সর্দার,মামুন মালত,মনি মালত গংরা শনিবার দুপরে মীর হোসেন মৃধা ও মিলন মালতকে মারধর করে। পরে  আর্নিস মৃধাসহ কয়েক জনকে আটকে রাখে পরে এই খবর  গ্রামে ছড়িয়ে পরলে গ্রামবাসিরা তাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসে। এসব ঘটনাকে আড়াল করতে মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে গ্রামে ত্রাসের রাজত্ব তৈরি করে আমাদের দোসারপ করছে।
এব্যাপারে মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন,এ ঘটনায়  একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে, এ ঘটনার সাথে যারাই জড়িত থাকুক না কেন, জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।  বর্তমানে ওই এলাকার পরিস্তিতি শান্ত রয়েছে।  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঘটনাস্থলে  মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

Comments are closed.

%d bloggers like this: