Ultimate magazine theme for WordPress.

মুন্সিগঞ্জে অভিযোগকারী ভোক্তাকে 6250/-টাকা প্রদান

46

লিখিত অভিযোগ নিষ্পত্তির মাধ্যমে মোবাইল সেট কোম্পানিকে জরিমানা ও অভিযোগকারী ভোক্তাকে জরিমানার ২৫% প্রদান করা হয়।

কাজী বিপ্লব হাসান মুন্সীগঞ্জ জেলার মিরকাদিম এলাকার মো: মিজানুর রহমান নামের একজন ভোক্তা গত 24/12/2019 তারিখে মুন্সীগঞ্জ সদরের ফাহিম টেলিকম থেকে শাওমি ব্রান্ডের একটি মোবাইল সেট ক্রয় করেন। মোবাইল সেটটির সাথে একটি অফার দেওয়া ছিল যাতে উল্লেখ ছিল “ওয়ান টু টেন নোট ব্যাক নিশ্চিত”। কিন্তু ভোক্তা মোবাইল সেট ক্রয় করার পরে কোন নোট ব্যাক বুঝে পায়নি। এমতাবস্থায় উক্ত ভোক্তা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, মুন্সীগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। মুন্সীগঞ্জ জেলা কার্যালয় অভিযোগটি আমলে নিয়ে তদন্ত করে এবং উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে শুনানি গ্রহণ করে। দুই দফা শুনানি শেষে অভিযোগটি প্রমানিত হয়। অতপর মুন্সীগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক প্রশাসনিক ব্যবস্থা হিসেবে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, 2009 এর 44 ধারা অনুযায়ী মিথ্যা বিজ্ঞাপন দ্বারা ক্রেতা সাধারনকে প্রতারিত করবার কারনে ফাহিম টেলিকমকে 5000/- (পাঁচ  হাজার) টাকা ও শাওমি মোবাইলের পরিবেশক কোম্পানিকে 20000/-(বিশ হাজার) টাকা জরিমানা আরোপ করেন। দুটি প্রতিষ্ঠানকে মোট 25000/- টাকা জরিমানা আরোপ করা হয়। আইন অনুযায়ী আদায়কৃত জরিমানার 25% অর্থ অভিযোগকারী প্রাপ্য হন।  অদ্য 21/01/2020 তারিখে অভিযোগকারী ভোক্তার হাতে জরিমানার 25% অর্থ হিসেবে 6250/- (ছয় হাজার দুইশত পঞ্চাঁশ) টাকা হস্তান্তর করেন মুন্সীগঞ্জ জেলার সুযোগ্য অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মো: সামিউল মাসুদ।

জনস্বার্থে ভোক্তা অধিকার বিরোধী কার্য প্রতিরোধে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কার্যক্রম সমূহ অব্যাহত থাকবে।

Comments are closed.