মুন্সিগঞ্জে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আরিফ ভোর ৪ টায় পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলায় তথাকথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে তথ্য দিয়েছে পুলিশ।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন দাবি করেন, গতকাল বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার চর হায়দ্রাবাদ এলাকায় এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।নিহত সাইফুল ইসলাম আরিফ (৩৭) সদর উপজেলার মুক্তারবাড়ী এলাকার বাসিন্দা। তিনি ‘বাবা আরিফ’ নামেও পরিচিত ছিলেন। মাস ছয়েক আগে তাঁর আপন ভায়রা ভাই শাহজালালও তথাকথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। ‘বন্দুকযুদ্ধ’ সম্পর্কে ওসির ভাষ্য হচ্ছে, গত মঙ্গলবার গভীর রাতে আরিফকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাঁর কাছ থেকে ১০০ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

‘গতকাল রাতে আরিফের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, তাঁকে নিয়ে গজারিয়াকান্দি এলাকা থেকে চর হায়দ্রাবাদ যাওয়া হয়। এ সময় সেখানে ওত পেতে থাকা আরিফের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।’ওসির আরো দাবি, এ সময় আরিফ দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে তাঁর শরীরে গুলি লাগে। পরে আরিফকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, আটটি গুলি, একটি গুলির খোসা ও চাপাতি উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য আরিফের লাশ মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান ওসি।

বেলা ১০:৩০ মিনিট মুন্সীগঞ্জ জেলারেল সদর হাসপাতেল এক প্রেসব্রিফিং এ জানানো হয়ছে, সন্ত্রাসী আরিফের বিরুদ্ধে মাদক সহ অস্ত্র ১২ টি মামলা রয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.