মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে গাছের সাথে অটোর ধাক্কায় সবজি ব্যবসায়ী নিহত

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে গাছের সাথে অটোর ধাক্কায় সবজি ব্যবসায়ী নিহত

4

তুষার আহাম্মেদ- মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ীতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি পল্লী বাইক রাস্তার পাশের গাছের মধ্যে ধাক্কা দিলে এক স্মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে গাছের সাথে অটোর ধাক্কায় সবজি ব্যবসায়ী নিহত

তুষার আহাম্মেদ- মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ীতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি পল্লী বাইক রাস্তার পাশের গাছের মধ্যে ধাক্কা দিলে এক স্বজী ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। নিহত সব্জি বিক্রেতা সাইফুল লাকুরিয়া (৫০) টঙ্গিবাড়ী উপজেলার চাঙ্গুরী গ্রামের বাসিন্দা। সে নারায়নগঞ্জ জেলার বৌ বাজার এলাকায় সবজি ব্যবসা করতো।

আজ রবিবার (১৫ আগস্ট) সকাল ৬টার দিকে সে তার নিজ বাড়ি হতে তার ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান নারায়ণগঞ্জ জেলায় যাওয়ার পথে টঙ্গিবাড়ী উপজেলার পাইকপাড়া চৌরাস্তায় তাকে বহন করা পল্লী বাইক গাড়িটির চাকা পামসার হয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের গাছে ধাক্কা লাগলে সে গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়। এ ব্যপারে নিহতের স্ত্রী তৌহিদা খাতুন নীলু বাদী হয়ে টঙ্গিবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নিহতের স্ত্রী তৌহিদা খাতুন নীলু জানায়, আমার স্বামী নারায়ণগঞ্জ থেকে ব্যবসা করতো। ১০ থেকে ১৫ দিন পরপর বাড়ি আসতো। দুদিন আগে বাড়ি এসে আজ আবার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যাচ্ছিলো।

রাস্তায় তাকে নিয়ে যাওয়া অটোর চাকা পাম চার হয়ে অটোটি রাস্তার পাশের গাছে ধাক্কা লাগলে সে আহত হলে ওই এলাকার লোকজন তাকে মুন্সিগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।
আমরা এখনো যে অটোটি এক্সিডেন্ট করেছে তার খোঁজ পাইনি। সে আরো জানায়, তাদের একটি মাত্র ছেলে সন্তান রয়েছে।

এ ব্যাপারে টঙ্গিবাড়ী থানার ডিউটি অফিসার এস
আই রিয়াজুল ইসলাম জানান, নিহতের লাশ মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতালে রয়েছে।

ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। নিহত সব্জি বিক্রেতা সাইফুল লাকুরিয়া (৫০) টঙ্গিবাড়ী উপজেলার চাঙ্গুরী গ্রামের বাসিন্দা। সে নারায়নগঞ্জ জেলার বৌ বাজার এলাকায় সব্জির ব্যবসা করতো।

আজ রবিবার (১৫ আগস্ট) সকাল ৬টার দিকে সে তার নিজ বাড়ি হতে তার ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান নারায়ণগঞ্জ জেলায় যাওয়ার পথে টঙ্গিবাড়ী উপজেলার পাইকপাড়া চৌরাস্তায় তাকে বহন করা পল্লী বাইক গাড়িটির চাকা পামসার হয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের গাছে ধাক্কা লাগলে সে গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়। এ ব্যপারে নিহতের স্ত্রী তৌহিদা খাতুন নীলু বাদী হয়ে টঙ্গিবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নিহতের স্ত্রী তৌহিদা খাতুন নীলু জানায়, আমার স্বামী নারায়ণগঞ্জ থেকে ব্যবসা করতো। ১০ থেকে ১৫ দিন পরপর বাড়ি আসতো। দুদিন আগে বাড়ি এসে আজ আবার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যাচ্ছিলো।

রাস্তায় তাকে নিয়ে যাওয়া অটোর চাকা পাম চার হয়ে অটোটি রাস্তার পাশের গাছে ধাক্কা লাগলে সে আহত হলে ওই এলাকার লোকজন তাকে মুন্সিগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।
আমরা এখনো যে অটোটি এক্সিডেন্ট করেছে তার খোঁজ পাইনি। সে আরো জানায়, তাদের একটি মাত্র ছেলে সন্তান রয়েছে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: