মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানার এসআই পরিচয় এক ভূয়া পুলিশ গ্রেফতার

0
তুষার আহাম্মেদ- মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর থানার এস.আই মিজান পরিচয়ে এক ভূয়া পুলিশকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। শনিবার দুপুর সারে ১২ টার দিকে উপজেলার বীরতারা চান্দেরটেক নামক স্থান থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ভূক্তভোগী পাশ^বর্তি সিরাজদিখান উপজেলার কোলা ইউনিয়নের রক্ষিতপাড়া গ্রামের লালচান শেখের ছেলে শেখ সাহাবুদ্দিন (৩০) জানায়, শ্রীনগর উপজেলার বীরতারা চান্দেরটেক বাসস্ট্যান্ডের পূর্বপাশে ‘ভান্ডারী টেলিকম ’ নামে তার একটি মোবাইল সার্ভেসিংয়ের দোকান রয়েছে। প্রায় ২০ দিন পূর্বে এক ব্যক্তি আমার দোকানে আসে। নিজেকে সে শ্রীনগর থানার এস.আই মিজান পরিচয় দিয়া একটি টার্চ মোবাইলের লক খুলতে বলে এবং  আমার দোকানের ডেস্কের ভিতর ক্যাশবাক্সের সামনে বসে দোকানে থাকা বিভিন্ন মোবাইল সামগ্রীর দাম জিজ্ঞেস করে। দোকানে কাষ্টমার বেশি দেখে ওই দিন সে চলে যায়।

গত ২৩ মে দুপুর সারে ১২ টার দিকে পূনরায় সে আমার দোকানে এসে ডেস্কের ভিতর ক্যাশবাক্সের সামনে বসে। আমার দোকানে বসে থাকা উপজেলার তিনগাঁও গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে দুসস্পর্কের চাচাত ভাই সেলিম(৩৬) কে আমি জানাই উনি শ্রীনগর থানার এস.আই মিজান। তৎক্ষনাত সে আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং আমাকে শ্রীনগর থানায় ধরে নিয়ে আসার জন্য হাত টেনে অটোরিক্সায় উঠানোর চেষ্টা করে। এসময় আশ-পাশের দোকানদারসহ অন্যান্য লোকজন ছুটে এসে শ্রীনগর থানায় ফোন করলে জানতে পারি এস.আই মিজান নামে শ্রীনগর থানায় কোন অফিসার নেই। ঘটনা স্থলে পৌছে থানা পুলিশ তাকে আটক করে জিজ্ঞাসা বাদ করে জানতে পারে সে সিরাজদিখান উপজেলার ইছাপুরা গ্রামের মৃত বশির উদ্দিনের ছেলে আমিনুল ইসলাম সুমন(৩৮)।

এ ব্যাপারে শেখ সাহাবুদ্দিন বাদি হয়ে শ্রীনগর থানায় একটি মামলা করেছেন। যাহার মামল নং- ১৫। ভূয়া পুলিশ  বিষয়ে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হেদায়েতুল ইসলাম ভূঞা’র কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ২৩ই মে ইং তারিখে, তার বিরুদ্ধে ধারা-১৭০/৩৭৯/৫১১ পেনালকোড রুজু করা হয়েছে এবং তাকে মুন্সীগঞ্জ জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: