মুন্সীগঞ্জে মাদকের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষনা এসপি জায়েদুল আলম পিপিএম

আবু হানিফ রানা। মুন্সীগঞ্জে মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম যোগদান করার পর প্রথমেই উদ্দ্যেগ নেন মাদকের বিরুদ্ধে এবং মাদক নিমূর্ল করার জন্য তিনি নতুন কৌশল তৈরী করেন যা বাংলাদেশে এই প্রথম । তিনি প্রথমে মাদক নিয়ন্ত্রনের লক্ষে মাদক বিরোধী সামাজিক প্রতিরোধ কমিটি গঠনের উদ্দ্যেগ নেন এবং তাহা বাস্তবায়ন ও করেছেন তিনি। তাহার এই মূহতি উদ্দ্যেগ বাসবাস্তবায়নের লক্ষ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পুলিশ সুপারের নির্দেশনা মোতাবেক ৬ থানার অফিসার ইনচার্জদের নিয়ে প্রতিটি এলাকায় মাদক বিরোধী সামাজিক প্রতিরোধ কমিটি গঠনের কাজ শুরু করেন ইতি মধ্য জেলার ৬০% কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আর কমিটির মাধ্যমে প্রতিনিয়তই মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবি ধরে পুলিশে সোপর্দ করা হচ্ছে। মাননীয় পুলিশ সুপারের এই মূহতি উদ্দ্যেগ কে বাংলাদেশ পুলিশের আইজি সমর্থন দিয়ে ভাল ও মূহতি এই উদ্দ্যেগের জন্য আইজিপি স¤œাননা প্রদান করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম কে। একসময়ে মাদকের সয়লাভ ছিল মুন্সীগঞ্জ জেলা!! আর এখন মাদক ব্যবসায়ী ও মাদকসেবীদের কাছে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম এই নামটি মৃত্যুঞ্জয়ী ও আতংক।

 

আর এই আতংক শুধুমাত্র অপরাধীদের জন্য। সাধারন মানুষের জন্য শান্তির প্রয়াস। কেননা তিনি মুন্সীগঞ্জে এসে দেখেছিলেন রক্তের গড়াগড়ি আর অস্ত্রের ঝনঝনানী। প্রতিদিন প্রতিমূহত্বে গুলাগুলির শব্দ। আজ সব কিছুর অবসান ঘটিয়েছেন মহাগুনি,মেধা সমপন্ন ব্যীক্ত মুন্সীগঞ্জ জেলার সু-যোগ্য পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম। জেলায বন্ধ করেছেন চাঁদাবাজি, চিনতাই, রাহাজানি, লুটপাট, ডাকাতি,যারফলে ব্যবসায়ী,চাকুরীজীবি মানুষগুলো নিরাপদে,নির ভয়ে দিব্যি দিনযাপন করতে পারছে। এসব কিছু সম্ভব হয়েছে পুলিশ সুপারের সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে দ্বায়িত্ব পালনের ফলে।

মুন্সীগঞ্জ কোর্টে জমি সক্রান্ত মামলার পরিমান কমে গিয়াছে, তার কারন পুলিশ জনগনের বন্ধু এমন বিশ্বাস স্থাপন করেছেন সাধারন মানুষের মনে বিরোধ মিমাংসার মাধ্যমে। পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান ৩শ বছরের জমি সক্রান্ত বিরোধের মিমাংসা করেছেন তিনি আর এই সমস্ত সমাধানের কারনে সাধারন মানুষ এখন মামলা মোকাদ্দমায় না গিয়ে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আবেদন করে পক্ষ বিপক্ষ দাবীদ্বার হয় পুলিশ সপারের বরাবর এবং তারা এখানে এসে স্থায়ী সমাধান পেয়ে অভয়ের মাঝে শান্তি ফিরে আসে । অভয় পক্ষই খুশিতে আত্মহারা। ইতিমধ্য পুলিশ সুপারের নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান সিরাজদীখান এলাকার এক অসহায় পরিবারের পাশে দাড়িয়ে মানবতার পরিচয় দিলেন।

বর্তমান সরকারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জন নেত্রী শেখ হাসিনা মাদক প্রতিহত করার লক্ষে মাদকের বিরুদ্ধে সাড়াঁশী অভিযানের ঘোষনা দেওয়ার পরে সারাদেশের ন্যায় মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএর নির্দেশনায় জেলার প্রতিটি এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান অব্যহত রয়েছে। এই পর্যন্ত মাদক বিরোধী অভিযানে মুন্সীগঞ্জে গ্রেফতার হয়েছে প্রায় দুই শাতাদিক।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.