মুন্সীগঞ্জে সন্ত্রাসী আজহার মোল্লা এখনো গ্রেফতার হয়নি

1

তুষার আহাম্মেদ: মুন্সীগঞ্জের চরাঞ্চলের মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের কংসপুরা গ্রামে ৩ যুবককে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় সন্ত্রাসী আজহার মোল্লাসহ ২৪ জনের নামে থানায় মামলা হয়েছে। এ মামলার দুজনকে আটক করা হলেও সন্ত্রাসী আজহার মোল্লাকে পুলিশ এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি।
এদিকে সন্ত্রাসী আজহার মোল্লা গ্রেফতার না হওয়ায় কংসপুরা গ্রামবাসী ফুঁসে উঠেছে। গ্রামবাসী বলছে, দিনে দুপুরে কংসপুরা গ্রামে প্রবেশ করে সন্ত্রাসী আজহার মোল্লা গ্রামের ৩ যুবককে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে। তাদের জীবন এখন শঙ্কটাপন্ন। তারা ঢাকা পঙ্গ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তাদের পরিবারের অবস্থা ভয়াবহ। অথচ পুলিশ রহস্যজনক কারণে সন্ত্রাসী আজহার মোল্লাকে গ্রেফতার করছে না!
অপরদিকে উল্টো আসামীরা মামলার বাদী রহিমা বেগমসহ তার পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
রহিমা বেগম আরো বলেন,সন্ত্রাসী আজহার মোল্লা ডাকাতের মতো আমাদের ছেলেদের কুপিয়ে হা-পা পঙ্গু করে দিয়েছে।তাদের জীবন শঙ্কটাপন্ন।লকডাউনে তাদের পরিবারের অবস্থা খুবই খারাপ। আর এ ব্যাপারে মামলা করা হলেও পুলিশ এখনো আজাহার মোল্লাকে গ্রেফতার করছে না।
এদিকে মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ফরহাদ খান জানান,আহতদের জীবন এখন শঙ্কটাপন্ন। একজনের চোখ নষ্ট হওয়ার উপক্রম। কিন্তু পুলিশ সন্ত্রাসী আজহার মোল্লাকে এখনো গ্রেফতার করছে না! পুলিশের ভুমিকা রহস্যজনক।
অপরদিকে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আবুবক্কর সিদ্দিক এ ঘটনার বিষয়ে বলেন, আজহার মোল্লাসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীকে গ্রেফতারের জন্য চেষ্টা চলছে।বর্তমানে কংসপুরা গ্রামের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। সেখানে পুলিশের পেট্রোল ডিউটি অব্যাহত রয়েছে।
জানা গেছে,গত ৩০ জুন বুধবার বিকেলে কংসপুরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে রশিদ হালদার (২৫) আহছান হালদার (২০) ও ইউনুছ হালদার (২০) একটি বেঞ্চে বসে গল্প করছিলো। এ সময় সেখানে পৃর্ব শত্রæতার জের ধরে সন্ত্রাসী আজহার মোল্লা তার বাহিনী নিয়ে এসে আর্তকিত হামলা চালিয়ে মেরে ফেলার উদ্দেশে ৩ যুবক রশিদ হালদার, আহছান হালদার ও ইউনুছ হালদারকে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে পালিয়ে যায়।

Comments are closed.

%d bloggers like this: