মুন্সীগঞ্জে হোগলাকান্দি গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধ আহত ৫

মুন্সীগঞ্জে হোগলাকান্দি গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধ আহত ৫

34

তুষার আহাম্মেদ:মুন্সীগঞ্জের চরাঞ্চলে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়েছে কমপক্ষে ৫জন। আহতরা হলেন শহীদ ফকির (৫৬) শরবর উল্লাল ফকির,(৪৫) লাইলি বেগম (৪৫) মফিজল ফকির (৪০) ও দুলালি (৩০)
আহতদের মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতাল ভর্তি করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরকেওয়ার ইউনিয়নের হোগলাকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে এ ঘটনা শুনার পর এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছে।জানা গেছে,শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে হোগলাকান্দি গ্রামের মৃত মঙ্গল ফকিরের ছেলে শহীদ ফকির ও তার মেয়ে দুলালী নিজেদের জোত সম্পত্তিতে ঘর তুলতে গেলে প্রতিপক্ষ মঈনুউদ্দিন ও তার ছেলে ফিরোজ ফকির ও তার ভাই জসিম ফকিরের নেতৃত্বে ১০/১৫জনের একটি গ্রুপ সেখানে যেয়ে বাঁধা প্রদান করলে এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে মঈনুউদ্দিন ও তার ছেলে ফিরোজ ফকির ও তার ভাই জসিম ফকিরের নেতৃত্বে রাজীব,রহিম ফকির,বাবুল ফকির,ইদামিন, মেহেদি ও শামসুদ্দিন ফকির আর্তকিতভাবে দুলালী ও তার বাবা শহীদ ফকির ও তার চাচা শরবত উল্লাহ ফকির ও মা লাইলি বেগমকে বেধরক মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয়। এ সময় তাদের আর্তচিৎকারে গ্রামের লোকজন ছুঁটে এসে তাদের উদ্ধার করে আহত অবস্থায় মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।এদিকে এ ঘটনার পরপরই আহতরা মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় এ ব্যাপারে অভিযোগ করলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন।

আহত দুলালী জানান, শুক্রবার সকালে আমরা আমাদের জোত সম্পত্তিতে ঘর তুলতে গেলে প্রতিপক্ষ মঈনুউদ্দিন ও তার ছেলে ফিরোজ ফকির ও তার ভাই জসিম ফকিরের নেতৃত্বে ১০/১৫জন আমাদের কাজে বাঁধা দেয়। আমাদের মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয়। তিনি আরো বলেন,এ সময় ফিরোজ ফকিরের নেতৃত্বে এই সন্ত্রাসী গ্রুপ আমার বসত বাড়িতে হামলা চালিয়ে ঘর ভাংচুর ও ঘরে থাকা জমি কেনার সাড়ে ৭ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

দুলালী আরো বলেন, যে জায়গাতে ঘর উঠাতে কাজ শুরু করেছিলাম এটি আমার পিতা শহীদ ফকিরের দাদা মজিদ ফকিরের পৈত্রিক সম্পত্তি। তার পিতার নাম কালাই ফকির। মজিদ ফকির তার চাচাতো ভাই জানু ফকিরকে এ সম্পত্তিতে থাকতে দেয়। ফিরোজের পিতা মঈনুউদ্দিন ছলচাতুরি করে জানু ফকিরের কাছ থেকে ওই সম্পত্তি নকল দলিল করে নেয়। কিন্তু মঈনুউদ্দিন ফকিরের কাছে এই সম্পত্তির আসল কোনো দলিল নেই। আমাদের এ সম্পত্তি তারা জোরদখল করে রেখেছে।

অপরদিকে এ ব্যাপারে ফিরোজ ফকির জানান,দুলালী আমাদের জায়গা দখল করার জন্যে ঘর তুলতে গেলে আমরা বাঁধা দেয় । এ সময় তারা কয়েকটি গাছ কাটে এ ্জন্যে তাদের সঙ্গে আমাদের বাকবিতন্ডা হয় কিন্ত মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার সাব—ইনেসপে্ক্টর সুশান্ত বাউল জানান,ক্ষতিগ্রস্থ আহত পরিবার থানায় অভিযোগ করলে আমরা ঘটনাস্থল গিয়ে লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছি। ঘটনার বিষয়টি আরো তদন্ত করে আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: