মুন্সীগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতালের সেবাদাতা ও সেবা গ্রহিতাগণের মধ্যে যৌথসভা

0 116

স্টাফ রিপোর্টার: ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক)-মুন্সীগঞ্জ এর উদ্যোগে এবং সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সার্বিক সহযোগিতায় ৭ মে ২০১৮ তারিখে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের সভাকক্ষে স্বাস্থ্যসেবায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধি এবং সার্বিক মানোন্নয়নের লক্ষ্যে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, সেবাদাতা ও সেবাগ্রহিতাগণের উপস্থিতিতে এক যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়। সনাক সভাপতি এ্যাড. মো: হুমায়ুন কবীর শাহীন-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ যৌথসভায় সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ হাবিবুর রহমান প্রধান অতিথি এবং বিএমএ মুন্সীগঞ্জ শাখার সভাপতি ডাঃ মো: আখতার হোসেন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথি সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ হাবিবুর রহমান হাসপাতালের সেবাগ্রহীতাগণ কর্তৃক উত্থাপিত বিভিন্ন সমস্যা ও অভিযোগের কথা শুনেন এবং সেগুলি সমাধানে পর্যায়ক্রমে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করেন।

 

তিনি সনাক এবং টিআইবি’র এধরনের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের বিদ্যমান সেবার মানোন্নয়নের পাশাপাশি এখাতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সনাকের সাথে যৌথভাবে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেন। সভায় উত্থাপিত ইস্যুসমূহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল- হাসপাতালের সরকারি এম্বুলেন্স কর্তৃক অতিরিক্ত ভাড়া আদায় রোধ করা, হাসপাতালের অভ্যন্তরে বিভিন্ন বেসরকারি ক্লিনিকের দালালদের দৌরাত্ব কমানো, কর্তব্যরত ডাক্তার ও নার্সগণের ডিউটি রোস্টার দৃশ্যমান করা, ঔষধের তালিকা নিয়মিত হালনাগাদ করা, হাসপাতালে গাইনি বিভাগে মহিলা ডাক্তার কর্তৃক প্রসূতি সেবা প্রদান, হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশনের ক্ষেত্রে ইনফেকশন রোধ এবং সিজারের জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ও ঔষধ হাসাপাতাল থেকেই সরবরাহ নিশ্চিত করা, হাসপাতালে আগত রোগীকে বিনা প্রয়োজনে বেসরকারি ক্লিনিকে বা ব্যক্তিগত চেম্বারে রেফার না করা এবং নব নির্মিত বহুতল আধুনিক হাসপাতাল ভবনটি চালু করে এলাকাবাসীকে উন্নত চিকিৎসা সেবা প্রাপ্তির সুযোগ করে দেওয়া ইত্যাদি।

বিশেষ অতিথি বিএমএ মুন্সীগঞ্জ শাখার সভাপতি ডাঃ মো: আখতার হোসেন তার বক্তব্যে বলেন যে, মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধি এবং সেবার মানোন্নয়নে সনাক যে কাজ করছে তা প্রশংসনীয়। তাছাড়া, তিনি উল্লেখ করেন যে, হাসপাতালে বিদ্যমান অসংখ্য সীমাবদ্ধতার মাঝেও ডাক্তারগণ এলাকার জনগণকে সুচিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন। তিনি সেবাপ্রার্থীগণকে এ সকল সীমাবদ্ধতার বিষয়টিও বিবেচনায় রাখার সুপারিশ করেন। তিনি হাসপাতালে সিজার বা সার্জারির কিছু কিছু ক্ষেত্রে সংগঠিত ইনফেকশনের ব্যাপারে রোগী বা সেবাপ্রার্থীদের অসচেতনতাকে দায়ী করার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট ডাক্তার এবং নার্সগণকে এব্যাপরে আরো সতর্ক থাকার অনুরোধ করেন। তিনি হাসপাতালের অনিয়ম সংক্রান্ত সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য দিয়ে কর্তপক্ষকে সহযোগিতা করলে তা প্রতিকারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রতিশ্রুতি দেন।

সনাক সহ-সভাপতি জাহানারা বেগমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা: এস.এম. সাখাওয়াত হোসেন, সিনিয়র কনসালট্যান্ট(সার্জারি) ডা: গোলাম মহিউদ্দিন, ডা: নিজাম উদ্দিন, সনাক সহ-সভাপতি তানভীর হাসান, সদস্য শহীদ-ই-হাসান তুহিন এবং টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার মো: রাশিদুজ্জামান (লিটন) প্রমূখ ব্যক্তিবর্গ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: