লঞ্চে ঝুঁকি নিয়েই পদ্মা পাড়ি

লঞ্চে ঝুঁকি নিয়েই পদ্মা পাড়ি

0
তুষার আহাম্মেদ- ফেরি এবং স্পিডবোট বন্ধ থাকায় শিমুলিয়া নৌরুটে পদ্মা পার হতে লঞ্চ ছাড়া অন্য কোনো মাধ্যম নেই। বৈরী আবহাওয়া বা তীব্র স্রোতের মধ্যে ঝুঁকি নিয়েই পদ্মা পার হতে হচ্ছে যাত্রীদের। নিরুপায় যাত্রীরা হুড়মুড় করে উঠছে লঞ্চে।
আগে জরুরি প্রয়োজন বা বৈরী আবহাওয়ায় লঞ্চ ও স্পিডবোট বন্ধ থাকলে ফেরিতে পার হওয়ার সুযোগ ছিল যাত্রীদের। কিন্তু পদ্মায় স্রোত থাকায় গত মাস থেকে বন্ধ রয়েছে ফেরি চলাচল। এছাড়া গত ৪ মে থেকে বন্ধ রয়েছে স্পিডবোট চলাচলও। এখন পদ্মা পার হতে লঞ্চই একমাত্র ভরসা। তাও সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার আগেই।
যাত্রীরা বলেন, এখানে অনেক ধরনের লঞ্চ আছে যেগুলো ত্রুটিপূর্ণ। বড়গুলো হলে এখানে বসে যেতে সুবিধা হয়। পদ্মায় পানি বেড়ে যাওয়ায় অনেক ঢেউ ছিল এতে একটু ভয় কাজ করছিল। লঞ্চে যে পরিমাণ যাত্রী নেওয়ার কথা তার থেকে বেশি যাত্রী নেওয়া হচ্ছে।
মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. আবু তাহের মিয়া বলেন, রাতের বেলা মানুষ ঝুঁকি নিয়ে লঞ্চে পারাপার হচ্ছে। আমাদের চোখকে ফাঁকি দিয়ে যাচ্ছে তারপরও আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।
শিমুলিয়ার বিআইডব্লিউটিএ এর পরিবহন পরিদর্শক মোহাম্মদ সোলাইমান বলেন, ফেরি ও স্পিডবোড বন্ধ থাকায় লঞ্চের উপর কিছুটা চাপ পড়ছে। তবুও আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি যে লঞ্চে যেন অতিরিক্ত যাত্রী না নেওয়া হয়।
শিমুলিয়া বিআইডব্লিউটিএ’র উপ পরিচালক ওবায়দুল করিম খান বলেন, পদ্মাতে প্রচুর পরিমাণে ময়লা-আবর্জনা ভাসে এ কারণে লঞ্চের পাখায় পেঁচিয়ে গিয়ে ইঞ্জিনে সমস্যা হয়। এই সকল দুর্ঘটনাকে মোকাবিলা করার জন্য উদ্ধারকর্মী রাখা হয়েছে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: