শিমুলিয়া নৌরুটে এবার নতুন পথ দিয়ে ফেরি চলাচল শুরু

শিমুলিয়া নৌরুটে এবার নতুন পথ দিয়ে ফেরি চলাচল শুরু

12
তুষার আহাম্মেদ- পদ্মা সেতুর পিলারে বার বার ধাক্কার ঘটনায় শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে এবার নতুন পথ দিয়ে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। এতে ফেরি চলাচলে সহজ হবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।
সোমবার (১৬ আগস্ট) দুপুর ১২টায় বিআইডব্লিউটিসি মাওয়া (মেরিন) এজিএম মো. আহাম্মদ আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ফেরি চলাচলের নতুন পথ অর্থাৎ পদ্মা সেতুর ১১, ১২, ১৩ ও ১৪ পিলারের নিচ দিয়ে বাংলাবাজার ঘাট থেকে শিমুলিয়া আসবে টার্গেট থাকবে ১২ ও ১৩ নম্বর পিলার। আর শিমুলিয়া থেকে বাংলাবাজার ঘাটে যাবে ৪, ৫, ৬ ও ৭ নম্বর পিলারে নিচ দিয়ে। এই পথে রোববার (১৫ আগস্ট) বিকেল ৩টা থেকে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। নতুন এ পথ দিয়ে বয়া লাগানোর কাজ শেষ হওয়ার পরই ফেরি চলাচল শুরু হয়। এবং স্রোতে ফেরি বয়া ধরে আসার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ফলে সীমিত আকারে ফেরি চলাচল করছে।
এদিকে, উভয় পাড়ে দায়িত্বে থাকা সেনাবাহিনীর সদস্যরা কোন ফেরি কয়টায় ছাড়লো কখন পৌঁছালো এবং চালক কে ছিল সার্বিক বিষয় তারা ডাটা বেইজের মাধ্যমে মনিটরিং করছেন। এর আগে এ রুটের ফেরি পদ্মা সেতুর ৯, ১০, ১১ ও ১২ নম্বর পিলারে নিচ দিয়ে চলাচল করছিল।
তিনি আরা বলেন, এর আগে গত শুক্রবার (১৩ আগস্ট) পদ্মা সেতুর ১০ নম্বর পিলারে ধাক্কা লাগার ঘটনার পর লৌহজংয়ের দোগাছিয়া আর্মি-ক্যাম্পে ফেরি চালকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়ে মিটিং হয়েছে। সেখানে এ দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি পদ্মা সেতুর কোন কোন পিলারের নিচ দিয়ে যাবে এবং কোন কোন পিলারের নিচ দিয়ে আসবে তা নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, ৫, ৬, ৭ ও ৮ নম্বর পিলারে নিচ দিয়ে ফেরি বাংলাবাজার ঘাট থেকে শিমুলিয়া ঘাটে আসবে। আর ৩, ৪ ও ৫ নম্বর পিলারে নিচ দিয়ে ফেরি শিমুলিয়া থেকে বাংলাবাজার ঘাটে যাবে এবং এই পথে ফেরি চলার জন্য বয়া লাগানো হবে বলে জানালেও তাতে পরিবর্তন এনে নতুন করে পিলার নির্ধারণ করে দেন।
এ নৌরুটে সীমিত আকারে ফেরি চলাচল করায় এ রুট ব্যবহারকারীদের বিকল্প রুট পাটুরিয়া-দৌলদিয়া ও চাঁদপুর-শরীয়তপুর রুট ব্যবহার করতে বলা হয়েছে।
বিআইডব্লিউটিসি মাওয়া ম্যানেজার (বাণিজ্য) মো. ফয়সাল হোসেন জানান, শিমুলিয়া ঘাট যানবাহন স্বাভাবিক রয়েছে। তবে বাংলাবাজার ঘাটে যানবাহনের চাপ রয়েছে। এ রুটে বর্তমানে সীমিত আকারে ৫টি কে-টাইপ ফেরি চলাচল করছে।

Comments are closed.

%d bloggers like this: