সিরাজদিখানে সিনোফার্মের টিকা দেয়া শুরু

4

সিরাজদিখানে সিনোফার্মের টিকা দেয়া শুরু

তুষার আহাম্মেদ- মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলায়া সারাদেশের ন্যায় চীনের তৈরি সিনোফার্মের গণটিকা প্রদান কার্যক্রম গতকাল সোমবার ১২ জুলাই শুরু হয়েছে।

গতকাল সোমবার সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমল্পেক্সে সকাল ১০টায় সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি হাজী মহিউদ্দিন আহমেদ নিজে ভ্যাকসিন গ্রহন করে গণটিকা কার্যক্রমের উদ্ভোধন করেন। দ্বিতীয় ধাপে প্রথম ডোজ টিকা গ্রহন করে হাজী মহিউদ্দিন আহমেদ সাংবাদিকের বলেন, টিকা দেওয়ার সময় কোনও ব্যথা অনুভূত হয়নি এবং দেওয়ার পরও কোনও সমস্যা হয়নি। আমি নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলাম। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা অনেক দেশের আগে টিকা এনে দৃঢ়তার পরিচয় দিয়েছেন, এ জন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি এবং সবাইকে করোনার টিকা নেওয়ার আহবায়ন জানাচ্ছি। দুপর ১২টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমল্পেক্সে ভ্যাকসিন গ্রহন করেন উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক এইচএম জহিরুল ইসলাম লিটু, তিনি জানান, সারবিশ্বে যখন ভ্যাকসিন সংকট , ভ্যাক্সিন নিয়ে যখন একপ্রকার যুদ্ধ চলছে ঠিক সেই মুহুর্তে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা জনগণের সুরক্ষার জন্যে এই ভ্যাক্সিন সংগ্রহ করে সাধারণ মানুষকে ভ্যাক্সিন গ্রহন করার সুযোগ করে দিয়েছেন ,ধন্যবাদ মানবতার জননী ।

সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আঞ্জুমান আরা জানান, দ্বিতীয় পর্যায়ে আমরা ২৮শত ভায়াল সিনোফার্ম ভ্যাক্সিন পেয়েছি। তিনি বলেন, টিকা গ্রহণের জন্য সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন ছাড়া টিকা নেয়া যাবে না। টিকা গ্রহণের জন্য এক কেন্দ্রে রেজিস্ট্রেশন করে আরেক কেন্দ্র থেকে টিকা গ্রহণ করা যাবে না। অতীতে এ সুযোগ থাকলেও এখন ওই বিকল্প পদ্ধতি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। রেজিস্ট্রেশনকারী সবার কাছে ক্ষুদেবার্তা পাঠানো হবে। ক্ষুদেবার্তা পেয়ে সংশ্লিষ্ট টিকা কেন্দ্রে এসে টিকা নিতে হবে।আজ উপজেলা চেয়ারম্যান হোদয়ের টিকা গ্রহণের মাধ্যমে এবারের কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। তবে টিকা গ্রহনের প্রথম দিনে ছিলো উপচে পড়া ভির অনেকটা গাদাগাদি করে টিকা গ্রহন করতে দেখা গেছে । প্রথম দিনে পুরুষ ১শত ৭ জন, মহিলা ৮৫ জন মোট ১শত ৯২ জন টিকা গ্রহন করেছেন।

উলেক্ষ্য প্রথম ধাপে সিরাজদিখান উপজেলায় ৮ হাজার ৬শত ৬০ জন টিকা নেন। এর মধ্যে প্রমথ ডোজ টিকা নিয়েছেন ৮ হাজার ৬শত ৬০ জন, দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৭হাজার ১শত ৯২ জন।

Comments are closed.

%d bloggers like this: