স্মারকলিপি মুন্সিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্রি-পেইড মিটার স্থাপন বন্ধ ও স্থাপনকৃত মিটার খুলে নিয়ে পূর্বতন ডিজিটাল মিটার স্থাপনের দাবী প্রসঙ্গে।

কাজী বিপ্লব হাসানঃ পদ্মা, মেঘনা,ধলেশ্বরী ও ইছামতি বিধৌত এক সময়ের বঙ্গের রাজাধানী বিক্রমপুর হালে মুন্সিগঞ্জ জেলা একটি ঐতিহ্যবাহী জনপদ। সুদীর্ঘ অতীতকাল থেকে শিক্ষা, সংস্কৃতি,ধর্ম, বিজ্ঞান, রাজনীতি ও ক্রীড়াঙ্গানে এই জনপদের সন্তানেরা গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা ও জাতীয় জীবনে অবদান রেখে আসছে। বিশ্ববিখ্যাত বিজ্ঞানী স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু, বৌদ্ধ ধর্মের জ্ঞান তাপস শ্রীজ্ঞান অতীশ দীপঙ্কর, ইংলিশ চ্যানেল বিজয়ী ব্রজেন দাস, দেশ বন্ধু চিত্তরঞ্জন দাস, সত্যেন সেন সহ আরো অনেক কীর্তিমানের জন্মস্থান এই জনপদ। বিগত দিনে এবং সমসাময়িক সময়ে এই অঞ্চলের মানুষের জীবনে মান উন্নয়নে সভ্যতা বির্নিমাণে এই সকল গুণীজন বিশেষ অবদান রেখে আসছেন।অভিজ্ঞ একজন জেলা প্রশাসক পেয়ে আমরা মুন্সিগঞ্জবাসী আনন্দিত ও গর্বিত। আমরা আশা করি আধুনিক মুন্সিগঞ্জ গড়ার ক্ষেত্রে আপনি আপনার নিজগুণে গৌরবোজ্ঝল ভ‚মিকা রাখবেন। আপনার গঠনমূলক নেতৃত্ব এবং দক্ষ পরিচালনায় মুন্সিগঞ্জ জেলায় সর্বত্র উন্নয়নের ধারাবাহিকতা উত্তর উত্তর এগিয়ে যাবে। মুন্সিগঞ্জ জেলায় আপনার আগমনকে আমরা স্বাগত ও অভিনন্দন জানাচ্ছি। আমরা মুন্সিগঞ্জ জেলাবাসী বর্তমানে বিক্ষোব্ধ অবস্থায় সময় কাটাচ্ছি। আমাদের মনের অবস্থা খুবই বিপর্যস্ত। মুন্সিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি মুন্সিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন ওয়ার্ড, পাড়া মহল্লা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে প্রি- পেইড মিটার স্থাপন করছে। ইতমধ্যে যে সকল এলাকায় এই প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছে ঐ সকল এলাকার বিদ্যুৎ গ্রাহকগণ চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়েছেন। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিরুদ্ধে গ্রাহক সেবার নামে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল আদায় সহ ভ‚তুড়ে বিল এবং বিদ্যুৎ সঞ্চালনের নামে নানা রকম জুলুম ও জালিয়াতী চালাচ্ছে। বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনে কোন ধরনের সমস্যা দেখা দিলে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে উক্ত সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নানা ধরনের তালবাহানা সহ গ্রাহকদের অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। এরই মধ্যে পুরনো ডিজিটাল মিটারের স্থলে নতুন সেল্ফ প্রোগামিন এনালগ মিটার স্থাপনের কারণে গ্রাহকগণ আরো নতুন নতুন সমস্যার সম্মুখীন বা ভোগান্তিতে পড়েছেন। এই নতুন প্রি-পেইড মিটার স্থাপনের ফলে, গ্রাহককে বিগত সময়ের তুলনায় বর্তমানে দিগুন থেকে তিনগুন পর্যন্ত অতিরিক্ত বিল গুনতে হচ্ছে। এছাড়াও বিদ্যুৎ রিচার্জ কার্ড রিচার্জ কার্ড রিচার্জ করা কালে-সঙ্গে সঙ্গে সার্ভিস চার্জ, ভ্যাট,মিটার ভাড়া ও কিলো নামক কতগুলো ভ‚য়া বিলের নামে বিপুল পরিমাণ টাকা কেটে নিচ্ছে। অপর দিকে রিচার্জকৃত টাকা শেষ হয়ে গেলে আস্মিক ভাবে রাত বিরাতে বিদ্যুৎ সংযোগ অটোমেটিক বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারনে গ্রাহকগণ চরম ভোগান্তির ¯^ীকার হচ্ছেন। এ সকল নানা করাণে গ্রাহকদের মাছে চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। আপনার জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি যে, বিরাজমান এই পরিস্থিতে, অনতি বিল¤ে^ প্রি-পেইড মিটার বন্ধ ও স্থাপনকৃত মিটার খুলে নিয়ে পূর্বতন ডিজিটাল মিটার স্থাপনের দাবীতে আমরা মুন্সিগঞ্জ জেলার সর্বস্তরের নাগরিকগণ “ সচেতন নাগরিক ঐক্যে”র ব্যানারে বিগত ১০/০৬/২০১৯ ইং তারিখে আপনার পূর্ববর্তী জেলা প্রসাশক, সায়লা ফারজানা মহোয়ের বরাবরে একখানা স্মারকলিপি প্রদান করেছিলাম কিন্ত তিনি অল্প সময়ের ব্যবধানে পদন্নতি নিয়ে মুন্সিগঞ্জ জেলা ছেড়ে চলে যান কিন্ত আমাদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে কিছুদিন মিটার লাগানো বন্ধ থাকলেও জেলা প্রসাশকের অনুপস্থিতি ও ঈদের ছুটির সুযোগ নিয়ে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি পুনরায় মিটার লাগানোর কার্যক্রম শুরু করেছে, এতে সামাজিক অস্থিরতা সৃষ্টি সহ আইন শৃক্সখলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটার সমূহ সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় জেলা প্রসাশক তাদের কে আসস্থ করেন যে স্মারক লিপি নিয়ে মন্ত্রণালয়ে আলোচনা করা হবে।

Spread the love

Comments are closed.